ব্রেকিং নিউজ

সাংবাদিক নির্যাতনে শুরুতেই প্রশ্নবিদ্ধ তালেবানি শাসন

সেপ্টেম্বর ১০ ২০২১, ০০:১৩

খবর পেয়ে তাদের সহকর্মী আবির শায়গান ও লুতফালি সুলতানি পত্রিকাটির সম্পাদক কাধিম কারিমির সঙ্গে ছুটে যান স্থানীয় থানায়। তাদের অভিযোগ, সেখানে পৌঁছাতেই তালেবান যোদ্ধারা তাদের ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়, থাপ্পড় মারে ও মোবাইল ফোনসহ সঙ্গে থাকা জিনিসপত্র কেড়ে নেয়।

শায়গান বলেন, কারিমি কথাও শেষ করতে পারেননি, তার আগেই এক তালেবান সদস্য তাকে চড় মারেন ও বের হয়ে যেতে বলেন। সাংবাদিক পরিচয় জানার পর তাদের আরও তুচ্ছতাচ্ছিল্য করা হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি।

বর্বর নির্যাতন
শায়গান জানান, তাদের তিনজনকে একটি ছোট কক্ষে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে আগে থেকেই ১৫ বন্দিকে রাখা ছিল, যাদের মধ্যে রয়টার্স ও আনাদোলু এজেন্সির দুই সাংবাদিকও ছিলেন। এসময় তারা অন্য একটি কক্ষে দারিয়াবি ও নাকদিকে নির্মম নির্যাতনের খবর জানতে পারেন।

jagonews24

বন্দিরা তাদের বলেছেন, আমরা ওদের চিৎকার ও কান্না শুনতে পাচ্ছিলাম। এমনকি তারা নারীদের চিৎকারও শুনেছেন। পত্রিকায় প্রকাশিত ছবিতে বাকি অংশ আরও পরিষ্কার হয়ে যায়। ছবিতে দুই সাংবাদিকের সারা শরীরে মারাত্মক মারধরের চিহ্ন দেখা গেছে।

শায়গান বলেন, এত বেশি মারধর করা হয়েছিল যে, তারা হাঁটতেও পারছিল না। তাদের বন্দুক দিয়ে মারা হয়েছে, লাথি মেরেছে, তার দিয়ে পিটিয়েছে, থাপ্পড় মেরেছে।

তিনি জানান, মারধরের মাত্রা এত বেশি ছিল যে, ব্যথায় অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলেন সাংবাদিক নাকদি ও দারিয়াবি।

এদিন শুধু সাংবাদিকদেরই নির্যাতন করা হয়নি। শায়গানের দাবি, তাদের সেই কক্ষে তালেবান যোদ্ধারা এক বিক্ষোভকারীকে রেখে যায়। দেখেই বোঝা যাচ্ছিল, তাকেও নির্যাতন করা হয়েছে।

 




আজকের আবহাওয়া

পুরাতন সংবাদ খুঁজুন

September 2021
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930  

আমাদের ফেসবুক পাতা


এক্সক্লুসিভ আরও

1651 Shares
%d bloggers like this: